No icon

বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জোরাল ভূমিকা চাই

ঐশী, হাওয়া এবং শ্রাবণী 

বাল্যবিবাহ সাম্প্রতিক কালে একটি ভয়াবহ সামাজিক সমস্যা। দিন দিন এ সমস্যা প্রকটতর হচ্ছে। কোন কিছুতেই যেন বাল্যবিবাহ নামক অভিশাপ থেকে সমাজকে মুক্ত করা যাচ্ছেনা। এর সবচেয়ে বেশি শিকার হচ্ছে স্কুল পড়ুয়া মেয়েরা।

পরিবারের একটি ভুল সিদ্ধান্তের কারণে অগণিত মেয়ের কপাল পুড়ছে। জীবনের সকল স্বপ্ন নিমিষে ধুলিস্যাৎ হয়ে যাচ্ছে অপরিণত বয়সে বিয়ের কারণে। খুব অল্প বয়সের একটি মেয়ে যখন নিজের দায়িত্ব সম্পর্কেই অজ্ঞ তখন তাকে নিতে হচ্ছে সংসার নামক আদি ও গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব। নিজেই যখন মায়ের আচঁল আর বাবার আদরে থাকার কথা, তখন সে নিজেই ব্যস্ত মাতৃত্বের মত মহাদায়িত্বশীল ভূমিকায়।

সাধারণত বাল্য বিবাহের নানাবিধ কুফল রয়েছে। স্বাস্থ্যহানির কারণে অনেকে মেয়ে অকালে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে।

এই অভিশাপ থেকে মেয়েদের বাঁচাতে হবে। এর সবচেয়ে বড় দায় রাষ্ট্রের। তবে, আমরা মনেকরি, প্রত্যেকটি স্কুল এ ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে। বৃহত্তর ও গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্কুল এই দায় এড়াতে পারেনা। এজন্য, অভিভাবকদের সচেতন করাসহ শিক্ষার্থীদের নিয়ে বাল্যবিবাহ নিরোধ কমিটি গঠনের উদ্দ্যোগ নিতে পারে। 

প্রয়োজনের আইনের সহায়তা নিয়ে স্কুলের অল্পবয়েসী মেয়েদের বাল্যবিবাহ নামক অভিশাপ থেকে মুক্তি দিতে পারে।

এ ব্যাপারে প্রত্যাকটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সুদৃষ্টি কামনা করি।

ঐশী, হাওয়া এবং শ্রাবণী, সাখুয়া আদর্শ বিদ্যানিকেতনে দশম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী।

Comment As:

Comment (0)